অহংকার

অহংকার মানে নিজেকে আল্লাহর বান্দাদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ জ্ঞান করা, অন্যদেরকে নিজের তুলনায় ক্ষুদ্র ও অধম জ্ঞানকরতঃ তুচ্ছ- তাচ্ছিল্য করা, আল্লাহর আদেশের বিরুদ্ধে ঔদ্ধত্য প্রকাশ করে তার অবাধ্য হওয়া ও আদেশ অমান্য করা, এ সবই অহংকারের লক্ষণ ও তার আওতাভুক্ত
আমি আমার নিদর্শনসমূহ হতে তাদেরকে ফিরিয়ে রাখি, যারা পৃথিবীতে অন্যায়ভাবে অহংকার করে বেড়ায়। যদি তারা সমস্ত নিদর্শন প্রত্যক্ষ করে ফেলে, তবুও তা বিশ্বাস করবে না। আর যদি হেদায়েতের পথ দেখে, তবে সে পথ গ্রহণ করে না। অথচ গোমরাহীর পথ দেখলে তাই গ্রহণ করে নেয়। এর কারণ, তারা আমার নিদর্শনসমূহকে মিথ্যা বলে মনে করেছে এবং তা থেকে বেখবর রয়ে গেছে। [সুরা আরাফ: ১৪৬]
অহংকার গোপন ও প্রকাশ্যে দুই ধরণের হয়ে থাকে। গোপন অহংকারের মনে সৃষ্টি হয় আর প্রকাশ্যে অহংকার অঙ্গ প্রতঙ্গদ্বারা প্রকাশ পায়। গোপন অহংকারী অন্যসব অহংকারীর চেয়েও নিজেকে বড় মনে করে। এটা তার ধারণায় বদ্ধমূল হয়, অবশেষে এটি তার বিশ্বাসে পরিণত হয়। ফলে নিজেকে খুব সম্মনিত মনে করে এবং এক সময় তা তার বাস্তব চরিত্রে প্রকাশ পেতে শুরু করে।
আল্লাহ প্রত্যেক অহংকারী এবং সেচ্ছাচারীর অন্তরে মোহর লাগিয়ে দেন, (সুরা মুমিন-৩৫)।
প্রকাশ্যে অহংকারের ব্যাপারে আল্লাহতায়ালা বলেনঃ অহংকারবশত তুমি মানুষকে অবজ্ঞা করো না এবং যমীনে গর্বসহকারে পদচারণা করো না। নিশ্চয়ই আল্লাহ কোন অহংকারীকে পছন্দ করেন না। চাল-চলনে মধ্যম পন্থা অবলম্বন কর এবং কন্ঠস্বর নীচু কর (সুরা লোকমান-১৮-১৯)।
পৃথিবীতে দাম্ভিকতা সহকারে চল না। নিশ্চয়ই তুমি পদাঘাতে ভ’পৃষ্ট বিদীর্ণ করতে পারবে না এবং উচ্চতায় পর্বত প্রমাণ করতে পারবে না। এ সসবের মধ্যে যে গুলো মন্দ কাজ, সেগুলো তোমার রবের কাছে অপছন্দনীয়, (বাণী ঈসরাইল-৩৭-৩৮)।

রাসুল (সঃ) বলেন, যার অন্তরে কণা পরিমাণও অহংকার আছে সে জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না (নহীহ মুসলিম)।
হাদীসে কুদসীতে আল্লাহতায়ালা বলেন, অহংকার আমার পোশাক। এ পোশাক যে আমার কাছ থেকে কেড়ে নিতে চেষ্টা করে, তাকে জাহান্নামে নিক্ষেপ করবো (সহীহ মুসলিম)।
অহংকারীর কতিপয় বৈশিষ্ট হলোঃ সে নিজে যা পছন্দ করে, অন্যেকে তা পছন্দ করতে দেয় না। সাধারণত সে বিদ্ধেষপরায়ণ হয়। কোন উপদেশকারীর উপদেশ গ্রহণ করতে পারে না। বরং উল্টো তার ঠাট্টা-বিদ্রেুাপে শিকার হয়। শিক্ষিত ব্যক্তির শিক্ষাও সে গ্রহণ করে না। মানুষের সাথে কথা বলা এবং চলার সময় হিংসা-বিদ্ধেষ, তচ্ছি-তাচ্ছিল্য ও গর্ব অহংকারের ভাব প্রকাশ করে। নেত্রত্বের কথা বা আদেশের কোন পরোয়া বা ভ্রুক্ষেপই করে না। মনে হয় এগুলো তার জন্য প্রযোজ্য নয় বা সে তার চেয়েও বেশী বা আরো ভালো জানে।আল্লাহতায়ালা আমাদের জগতের প্রথম গুণাহ ও ইবলিশের প্রথম অপরাধের কারণ অহংকার থেকে রক্ষা করুন। আমীন।

চৌধুরী হাফিজ আহমেদ এর ব্লগ থেকে সসংগৃহীত ও সংকলিত

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: