ঈমান ও সৎ কর্ম

আপনি আপনার চতুর্দিকে চোখ বুলালে দেখতে পাবেন আসমান থেকে নিয়ে জমিন পর্যন্ত নিয়ে আল্লাহর নিয়োজিত সমস্ত কর্মী আপনার সেবায় রত আছে।
এখন প্রশ্ন জাগে যে, এমনটি হলো কেন? আপনার মধ্যে এমন কি বৈশিষ্ঠ রয়েছে যে কারনে এ বিশ্ব আপনার খেদমত করে থাকে। অথচ আপনার থেকে সে কোন খেদমত নেয় না।
একথার উপর যদি আপনার ঈমান থেকে থাকে যে, সৃষ্টি জগতের প্রতিটি কনার সৃষ্টিকর্তা আল্লাহতাআলা। তিনিই এ জগতকে আপনার সেবায় নিয়োজিত করেছেন। তাহলে এ সমস্ত প্রশ্নের উত্তর অনুধাবন করতে আপনার বিলম্ব হবে না।
হয়েছে। কুরআন কারীমে আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন – “আমি জ্বীন ও ইনসানকে শুধু আমার ইবাদতের জন্য সৃষ্টি করেছি ”

প্রকৃত পক্ষে বন্দেগীর উদ্দেশ্য হলো মানুষ নিজেকে আল্লাহর আজ্ঞাধীন মনে করে নিজের পুরো জীবনকে তার বিধান মোতাবেক চালাবে। তাই ইবাদত বিশেষ কোন জায়গা , বিশেষ কোন সময় বা বিশেষ কোন বিশেষ কোন কাজের সাথে নির্ধারিত নয়। আপনি নিজের জীবনকে যদি আল্লাহর হুকুমের অধীন বানান, তাহলে আপনার জীবনের প্রত্যেকটি কাজ ইবাদত বলে গন্য হয়। আপনার ব্যবসা চাকরি এমনকি বৈধ বিনোদনও ইবাদত। তবে শর্ত হলো তা আল্লাহর হুকুম মত ও সৎ নিয়তে হতে হবে।

কুরআন কারিম যার ঘোষনা দিয়েছে -“তোমাদের মধ্যে যারা ঈমান এনেছে ও সৎ কর্ম করেছে, আল্লাহ তাদেরকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যে, তিনি অবশ্যই তাদেরকে পৃথিবীতে নিজ খলিফা বানাবেন , যেমন খলিফা বানিয়েছিলেন তাদের পূর্ববর্তীদেরকে এবং তাদের জন্য তিনি সেই দ্বীনকে অবশ্যই প্রতিষ্ঠা দান করবেন, তার পরিবর্তে তাদেরকে অবশ্যই নিরাপত্তা দান করবেন। তারা আমার ইবাদত করবে, আমার সাথে কাউকে শরীক করবে না, এরপরও যারা অকৃতজ্ঞ, তারাই অবাধ্য সাব্যস্ত হবে।”

বিদ্রঃ কালেক্টেড ও এডিটেড হযরত মাওলনা জালালউদ্দীন সাহেবের বই “ইসলামী আকিদা-বিশ্বাস”
http://www.somewhereinblog.net/blog/Salim6251/29590882

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: