বিনা ওজরে রোযা না রাখার পরিনাম

Permission taken from Source  http://prothom-aloblog.com/users/base/durjoy/

হুযুরে পাক (সঃ) ইরশাদ করেন, যে ব্যক্তি বিনা ওজরে ইচ্ছাকৃত ভাবে রমযানের একটি রোযা ভঙ্গ করিয়াছে,অন্য সময়ের সারা জীবনের রোযা তাহার সমকক্ষ হইবে না।
ফায়েদা – হযরত আলী (রাঃ)-এর অভিমত, বিনা কারণে রমযানের একটি রোযা নষ্ট করিলে সারা জীবন রোযা রাখিলেও ক্ষতিপূরণ হইবে না ।
ফকীহগণ বলেন, যদি রমযানের রোযা একেবারেই না রাখে তবে একটার পরিবর্তে একটা রাখিলে কাজ্বা আদায় হইবে। কিন্তু রোযা রাখিয়া ভঙ্গ করিলে, একটা ছাড়াও ক্রমাগত দুই মাস কাফফারা রোযা রাখিতে হইবে। তবে রমযানের ফজীলত কখনো হাসিল হইবে না। আর যাহারা শুরু হইতে রোযার ধারই ধারে না। তাহারা ইসলামের পঞ্চম ভিত্তির একটির মূলে কূঠারাঘাত করিল। সে আদমশুমারীতে মুসলমান হইতে পারে,কিন্তু আল্লাহর ফিরিস্তিতে সে মুসলমান নয়।
অনেক বদখ্‌ত মূর্খ রহিয়াছে,যাহারা রোযাত রাখেই না; বরং রোযার সহিত বে আদবী ও বিদ্রূপ আচরণ করে এবং বলে,যাহার ঘরে খাবার নাই সে-ই তো রোযা রাখিবে বা আমাদেরকে উপবাস রাখিয়া আল্লাহর লাভ কি? (সাবধান), এই সব কথায় ঈমান নষ্ট হইয়া যায়। কেহ সারা জীবন কোন ইবাদত না করিলেও কাফের হয় না; কিন্তু শরিয়তের যে কোন বিধানের সহিত উপহাস করিলে বেঈমান হইয়া যাইবে । আল্লাহ আমাদের মাহে রমযানের রহমতের উছিলায় মাফ করুন। আমিন।
তথ্য-সংগৃহীত।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: