আল কুরআনের অনুবাদ বিভিন্ন ভাষায়

আল্লাহ রাব্বুল আলামিন কুরআন নাজিল করে সংরক্ষণের নিশ্চয়তাও বিধান করেছেন।
আমি কুরআন অবতীর্ণ করেছি এবং আমিই এর সংরক্ষক। (সূরা হিজরঃ আয়াত-৯)
কুরআন আরবি ভাষায় অবতীর্ণ হলেও তার আবেদন বিশ্বজনীন হওয়ার দরুন বিশ্বমানুষের কাছে কুরআনের বাণী পৌঁছে দেয়া মহানবী সাঃ-এর অন্যতম অবশ্যকর্তব্য ছিল। অতএব তিনি তাঁর প্রতিবেশী রাষ্ট্রের শাসনকর্তাদের নামে পত্রাদির মাধ্যমে ইসলামের দাওয়াত পাঠান। এ ব্যাপারে ভাষার বিভিন্নতা প্রতিবন্ধক হতে দেননি। ইসলাম প্রচারের উদ্দেশ্যে আরবি না জানা মানুষের কাছে কুরআনের বাণী পৌঁছে দেয়ার তাগিদে অনারবি ভাষায় কুরআনের অনুবাদ বিশ্বনবীর আমলে আরম্ভ হয়ে আজো অব্যাহত আছে। তবে এ কথা মুসলমানরা ভালোভাবে জানেন, অনুবাদ কোনো অবস্থাতেই মূল কুরআনের বিকল্প হতে পারে না। কারণ কুরআন হচ্ছে হজরত জিব্রাইল আনীত ভাষা ও অর্থের সমন্বয়ে আল্লাহর বাণী।এই অনুপ্রেরণা নিয়েই বিভিন্ন ভাষাভাষী মুসলিম মনীষী ও পণ্ডিতগণ কুরআন অনুবাদের জন্য স্বতঃস্ফূর্তভাবে এগিয়ে আসেন। পক্ষান্তরে অমুসলিম পণ্ডিতরাও ধর্ম প্রচারের গরজে এই গ্রন্থ অনুবাদে এগিয়ে আসেন।
সাম্প্রতিক কালের এক জরিপে জানা গেছে, বিশ্বের প্রায় ৭০টি প্রধান ভাষায় আল কুরআন অনূদিত হয়েছে। অমুসলিমদের ভাষাতেও পর্যাপ্ত অনুবাদ হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন ভাষায় পবিত্র কুরআনের অনুবাদ ও ব্যাখ্যা অব্যাহত গতিতে চলছে। তথ্যদৃষ্টে প্রতীয়মান হয়, এ ধারা আরো ব্যাপকরূপে পরিগ্রহ করবে।

জি এম এমদাদ

Permission taken from Source     http://islamicbanglabd.blogspot.com/

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: